মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

পূর্ববতী মামলার রায়

বরাবর,

           চেয়ারম্যান সাহেব                                                                                 ১২ /১১/২০১২ইং

           ৩নং রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদ

            উপজেলাঃগোমস্তাপুর,জেলাঃচাঁপাইনবাবগঞ্জ।

 

বিষয়ঃ জমি  প্রসংঙ্গে।

 

বাদী পক্ষঃ-                                    বিবাদী পক্ষ-

মোঃআরশে আজম                   ১/ মোঃ আফতাবউদ্দীন আহম্মের             

পিতা-মৃত-মুন্সি পাতানু মিঞা               পিতাঃ-আহম্মদ আলী

গ্রামঃ রহনপুর পুরাতন বাজার                সাং-আক্কেলপুর,

ডাকঘড়-রহনপুর,                        উপজেলা-গোমসাপুর

উপজেলা-গোমস্তাপুর,                      জেলাঃচাঁপাই নবাবগঞ্জ।

জেলা-চাঁপাই নবাবগঞ্জ।                    

                                   

                                   

                                  

 

       জনাব, সবিনয় বিনীত নিবেদন এই যে, বিগত ইং ২০১১ সালের সেপ্টেমবর মাসে বিবাদী আমার নিকট হইতে ডোবার মোড়ের এসরাইল সকলের দোকান ঘড় দিব বলে।১৬,০০০/টাকা জমা লইয়াছে।উক্ত টাকা দোকান মালিক ইসরাইল স্বয়ং তার দফাদার আশরাফুলকে দিতে বলেন।মোটামটি ১০ দিন পরে আমি চিন্তা ভাবনা করিয়া দেখিলাম যে মাসিক ৫০০ টাকা ভাড়া দিয়া দোকানঘড় ভাড়া লওয়া যাবেনা।এবং আমার পক্ষে সম্ভাব নহে।মর্মে জমা টাকা ফেরতৎ চাহা হইলে উনি বলেন দোকান ঘড় ভাড়া না লয়লে জোর করে দেওয়া যাবেনা।আমি টাকার ব্যবস্থা করিয়া দিতেছি।তারপর আশরাফুলকে টাকা ফেরৎ এর  কথা্ বলল।সে বলল টাকা আমি লইয়াছি।আমি ফেরৎ দিব এই কথা লইয়া অনেকবার ব্যবস্থা হয়।উক্ত ঘটনা সময় উপস্থিতি দোকানদারগণ উপস্থিত আশরাফুলকে বলে,টাকা ফেরৎ দাও সে বারবার সময় লইতেছে কিন্তু এই পর্যন্ত টাকা দিচ্ছেনা।

 

     

       অতঃএব বিধায় প্রার্থনা এই যে, আপনার নিকট আমার আকুল আবেদন দয়া করে আমার টাকা আদায়ের ব্যবস্থা করিয়া দিতে মর্জি হয়।

 

                                  

                                

                              

প্রকাশ থাকে যে,আর ও সাক্ষী আছেঃ-

১/মোঃকামরুল

সাং-কায়েমপুর

২/ইলিয়াস

সাং-ডুবার মোড়

৩/কালাম সরদার

সাং-ডুবারমোড়                                     বিনীত

                                             

                                             আবেদনকারী-

                                  (মোঃআব্দুস সামাদ)

 

 

বরাবর,

     চেয়ারম্যান সাহেব,

     ৩নং রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদ

     উপজেলা:গোমস্তাপুর, জেলা:চাঁপাইনবাবগঞ্জ ।

                                                  তারিখ:২২/১১/২০১৩

 

বিষয়:অন্যায় ভাবে মারপিট ও নির্যাতন প্রসঙ্গে।

 

  বাদীপক্ষ                                        বিবাদী পক্ষ

মো:মিন্টু আলী                                  ১.মোঃ সেলিম আলী

পিতা:মো:ভদু আলী                                পিতা-মোঃ মোস্তাফা আলী

গ্রাম:তেঘরিয়া,পোষ্ট-কায়েমপুর,                        ২.মোঃ মোস্তফা আলী

উপজেলা-গোমস্তাপুর,জেলা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ।                 পিতা-মোঃ আবু বাক্কার

                                           ৩.মোসাঃ শিরিনা বেগম

                                           স্বামী-মোঃ মোস্তফা আলী

                                        সর্ব সাং-ঘোলাদিঘী,পোষ্ট-আক্কেলপুর,

                                      উপজেলা-গোমস্তাপুর,জেলা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

জনাব,

     সবিনয় বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার ইউনিয়ন এর অন্তর্ভূক্ত ০৭ নং ওয়ার্ড এর তেঘরিয়া গ্রামের একজন সহজসরল  গরীব মানুষ।ঘোলাদিঘী নিবাসী মোঃ মোস্তফা আলীর ছেলে মোঃ সেলিম আলীর সহিত আমার মেয়ে মোসাঃ মুনিরা খাতুনের প্রায় ০৫ মাস পূর্বে মুসলমান সারা সরিয়ত মোতাবেক শুভ বিবাহ হয়।বিবাহের পর ২ বার আনা নেওয়ার করার পর আমার মেয়েকে অন্যায় ভাবে মারধর করে। পারপিটের কথা শুনে ২নং বিবাদীর পিতা মোঃ আবু বাক্কার ১নং বিবাদীকে শাশ্বন করেন।১নং বিবাদী রাগ দেখিয়ে বাড়ী হইতে বের হয়ে চলে যাচ্ছে।তখন ২নং বিবাদী মোবাইলফোনে আমাকে জানাতেছে যে এবং মোবাইলফোনে আমার মেয়েকে অশ্লীল ভাষাই গালি দিচ্ছে,আর বলিতেছে তোমার মেয়ের কারণে আমার ছেলে বাড়ী হইতে বের হয়ে চলে যাচ্ছে।তোমার মেয়েকে এখন কে পুসবে।আমি মোবাইলফোনে শুনার পর ঘটক সাহেবকে বললাম ঘটক সাহেব আমাকে বললেন যে যৌতুকের টাকাটা দিলে সব ঠিক হয়ে যাবে।আমি টাকা ব্যাবস্থা করে দিলাম। কিছু দিন ভালভাবে ঘর সংসার করিল।তারপর আবার অত্যাচার শুরু করে।আমি জানতে পেরে আমার মেয়েকে বেড়াইবার নাম করে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসি।কিন্তূ এখন পর্যন্ত আমার মেয়ের খোজ খবর রাখেনা। মোবাইল ফোনে আমাকে বলে যে,তোমার মেয়ে যখন চলবেনা তুমি আমার এখানে এসে সাবেক চেয়ারম্যান জনাব মোঃ মামুনুর  রশীদ এর নিকট ঝামেলা মেরে নিব। আমি জাইতে রাজি না হওয়ায় আমাকে মোবাইলে জঘিন্ন ভাষায় কথা বার্তা বলেন।এখন বর্তমানে আমার মেয়ে আমার বাড়ীতে অবস্থান করতেছে।বিধায় আমি আইনের আশ্রয় নিলাম।অতঃএব বিধায় প্রার্থনা এই যে,আমার মেয়ের সমস্যা সমাধান করিতে জনাবের মর্জি হয়।

                                             

                                                                        

                                                    দরখাস্তকারী-

বরাবর,

        ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা,

        রাধানগর ইউনিয়ন ভূমি অফিস,গোমস্তাপুর,চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

 

বিষয়ঃ  অবৈধ-বে-আইনীভাবে সরকারী রাস্তার মাটি কেটেফেলে জনসাধারন ও জানবহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা  

         সৃষ্টি  প্রসঙ্গে আবেদন।

 জনাব,

         সবিনয় বিনীত নিবেদন এই যে,আমারা অত্র উপজেলাধীন ৩নং রাধানগর ইউনিয়নের অন্তরগত ০৫নং ও ০৬নং ওয়ার্ডসহ অত্র অঞ্চলের অধিবাসীবৃন্দ।আমরা বহু বছরধরিয়া অর্থাৎ পূর্ব পূরুষ ধরিয়া জশৈল গ্রাম হইতে নগরপাড়া হয়ে রোকনপুর বিজিবি ক্যাম্প ও রোকনপুর গ্রাম পর্যন্ত রাস্তাটির উপর দিয়া যানবাহন ও জনসাধারন চলাচল করিয়া আসিতেছি।প্রকাশ থাকে যে,উক্ত রাস্তাটি  অত্র এলাকার মধ্যে অত্যন্ত জনগুরুত্বপূর্ণ থাকায় বিগত ১৯৮১-১৯৮২অর্থবৎসরে সরকার কর্তৃক কেয়ার কর্মসূচীর আওতায় মাটি দ্বারা পূনঃনির্মান প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ সর্ম্পূন করা হয়। পরবর্ত্বিতে ১৯৮৬-১৯৮৭  অর্থ বৎসরে সরকার কৃর্তৃক বিশ্ব্যখাদ্য কর্মসূচীর আওতায় সংস্কার প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ সর্ম্পূন করা হয় এবং ইহার পরে ১৯৯৫-১৯৯৬ অর্থ বৎসরে সরকার কর্তৃক এল.জি.ইডি.অধিদপ্তর হতে উক্ত রাস্তাটিতে পূনঃনির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ সূষ্ঠু ও সন্তোষজনক ভাবে সুসর্ম্পূন করা হইয়াছে।

         এ ছাড়া অত্র রাধানগর ইউনিয়নের নিজস্ব উদ্দ্যেগে বিভিন্ন সময়ে সংস্কার ও মেরামতের কাজ অব্যাহত রাখিয়া চলাচলের উপযোগী করে রাখা  হয়েছে ।প্রয়োজন মতাবেক ইতি মধ্যেই ব্রীজ ও কালভাট নির্মান করা হয়েছে এমতাবস্থায় গত ইং ০১/০১/২০১৪ তারিখে মোঃ ওহাব আলী পিঃ মোঃ আইনুদ্দীন,গ্রাম-রাধানগর খানপাড়া,পোষ্ট-কায়েমপুর,উপজেলাঃ গোমস্তাপুর,জেলাঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জ নামের উৎশৃংঙ্খল ও  সামাজ বিরোধী ব্যক্তি অসৎ উদ্দ্যেশে অবৈধ ও বে-আইনীভাবে উক্ত রাস্তাটির মাঝামাঝি পথে রাস্তার মাটি কেটে ফেলে,যানবাহন তথ্য জনসাধারন চলাচলের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার চেষ্টা করিতেছে।বিষয়টি অতীব জনগুরুত্বপূর্ণ তাই জরুরী ভিত্তিতে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহন করার লক্ষ্যে আবেদন করিতেছি।

         অতএব বিধায় প্রার্থনা এই যে, জরুরী ভিত্তিতে সরজমিন তদন্ত স্বাপেক্ষে সদয় অবগতি  ও প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণের জন্য হুজুরের মর্জি হয়।

                                                                               

        তফশীলঃ

 ‡gŠRv t রোকনপুর,                                                          

‡R,Gj,bs- ৪৩        webxZ,

LwZqvb bs-Avi,Gm-০১,`vM bs-১৭০৯Rwg- ০.৫০  শতক।                                                                                  

                                                                             

                                                                               

                                                                                        আরজ ইতি-

                                                                                  

                                                                                          বিনীত

                                                                                    এলাকাবাসীর পক্ষে

                                                                                   আহবাহক মোঃ এহিয়া

                                                                                  পিতা-মৃত-আঃ জাব্বার

                                                                               গ্রামঃ নগরপাড়া,পোষ্ট-আক্কেলপুর,

                                                                          উপজেলা-গোমস্তাপুর,জেলা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

 

সদয় অবগতি ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অনুলিপি প্রেরিত হইল।

(১) মাননীয় জেলা প্রশাসক,চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

(২)মাননীয় অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক,(রাজস্ব)চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

(৩)সহকারী কমিশনার(ভূমি)গোমস্তাপুর উপজেলা,চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

(৪)চেয়ারম্যান সাহেব,রাধানগর ইউনিয়ন পরিষদ,গোমস্তাপুর,চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

         এলাকাবাসীর স্বাক্ষরঃ

 

 


Share with :

Facebook Twitter